Wednesday , November 13 2019
Breaking News
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
Home / Health & Beauty / Bangla health tips – প্রয়োজনীয় কিছু স্বাস্থ্য টিপস

Bangla health tips – প্রয়োজনীয় কিছু স্বাস্থ্য টিপস

ঘোরোয়া কিছু স্বাস্থ্য টিপস যা খুব সহজেই আর আপনার কিছু সমস্যা নিয়ন্তণ করতে পারবেন ।এগুলো করা খুব সহজেই করা যাই। এবং এগুলো আমাদের অনেক উপকারে আসবে। । আজ এমনই কিছু স্বাস্থ্য টিপস আপনাদের সামনে তুলে ধরা হলো ।

১. কর্মস্থলে, স্কুলে, কলেজে বসার সময় বসুন সোজা হয়ে। তা না হলে কোমরে, পিঠে বা ঘাড়ে ব্যথা হতে পারে। একটানা বসে না থেকে মাঝেমধ্যে আশপাশে কিছুক্ষণ পায়চারি করুন এতে আপনার কমরে বা ঘাড়ে ব্যাথা হবার সম্ভাবনা থাকবে না ।

২. রেস্টুরেন্টে খাবার গ্রহণের সময় পুষ্টিকর খাবারের দিকে নজর দিন। যেমন  শাকসবজি, মুরগীর মাংস, মাছ, ফলমূল অর্ডার দিন তবে নিয়মিত বাইরের খাবার না খাওয়াই ভালো ।

৩. সন্তানদের স্কুলের টিফিন হিসাবে অবশ্যই পুষ্টিকর খাবার দিন ভাজি বা তেল জাতিয় খাবার থেকে দূরে রাখুন । শিশুদের বেড়ে উঠা, সুস্বাস্থ্যের অধিকারী হওয়ার জন্য পুষ্টিকর এবং পরিষ্কার খাদ্য গ্রহণের বিকল্প নেই।

৪. পরিবারের সকল সদস্য একসাথে খেতে বসুন। গবেষণায় দেখা গেছে পরিবারের সদস্যরা এক সাথে খেলে খাদ্যের পুষ্টিমান নিশ্চিত হওয়ার সাথে মন মানসিকতাও অনেক ভালো থাকে এছাড়া সম্পর্ক সুদিড় হই । খাবার গ্রহণের সময় অবশ্যই টিভি বন্ধ রাখুন, টেলিফোন বন্ধ রাখুন।

৫. শরীরের তাপমাত্রা নিয়ন্ত্রণ ও পেশীতে অক্সিজেন প্রবাহের জন্য পানি খুবই গুরুত্বপূর্ণ উপাদান। প্রতিদিন পুরুষদের মকপক্ষে ১৩ কাপ এবং নারীদের ৯ কাপ পানি খাওয়া উচিত এতে গ্যাস থেকেও মুক্ত পাওয়া যাই ।

৬. সারা দিনে ৩-৪ কাপ দুধ ছাড়া চা পান করুন। চা শরীরে অ্যান্টি-অক্সিডেন্টের জোগান দেবে। শরীর থাকবে তরতাজা এবং ক্লান্তিমুক্ত করে।

৭. বাসার বাইরে ফাস্ট ফুড জাতীয় খাবার গ্রহণ করার চেয়ে বাসায় রান্না করা খাবার গ্রহণে প্রতি আগ্রহী হোন।



৮.  ধুমপান কিংবা অন্য কোনো কারণে ঠোটে কালো দাগ হতে পারে। এটি দূর করতে হলে কাঁচা দুধে তুলা ভিজিয়ে ঠোটে ঘষতে শুরু করুন, এতে করে  আপনার ঠোটের কালো দাগতো উঠবেই সেইসঙ্গে ঠোটে গোলাপী ভাব আসবে।

৯. অনেকের কুনুয়ে কালো দাগ হয়। কনুইয়ের কালো দাগ দূর করতে হলে লেবুর খোসায় চিনি দিয়ে ভালো করে ঘষুন। দেখবেন কনুইয়ের কালো দাগ চলে যাবে।

১০. সকাল বেলার নাস্তা করতে কখনওই ভুল করবেন না। কারন সারাদিন কর্মক্ষম থাকার শক্তি অর্জনের জন্য সকালের নাস্তার বিকল্প নেই। নাস্তা হিসাবে টোস্ট, ফলমূল, শাকসবজি, পনির কিংবা দুধ জাতীয় খাদ্য গ্রহণ করতে পারেন।

১১. অনেকেরই ব্রণ হয়ে কালো দাগ হয়। ব্রণের উপর রসুনের কোঁয়া ঘষে নিন, এতে করে দেখবেন আপনার মুখের কালো দাগ তাড়াতাড়ি মিলিয়ে যাবে।

১২.  পেডিকিউর মেনিকিউর আপনার কাছে কী ঝামেলা লাগে? যদি তাই হয় তাহলে আজ হতে যখনই আপেল খাবেন তখনই আপেলের খোসাটা হাত পায়ে ঢলে নিন। এতে যেমন হাত পা ফর্সা হবে ঠিক তেমনি পরিস্কারও হবে।

১৩. প্রতিবেলার খাবারে ভাত – তরকারীর উপর ঝাঁপিয়ে না পড়ে সবজি এবং ফলমূল খেতে অভ্যাস করুন। এইসব খাবার প্রচুর ভিটামিন, মিনারেল এবং শ্বাসতন্ত্রু দ্বারা পরিপূর্ণ থাকে। প্রতিদিন দুই কাপ ফল এবং আড়াই কাপ শাকসবজি খাওয়া উচিত।

১৪. সুস্বাস্থ্যের জন্য সুনির্দিষ্ট পরিমাণ প্রোটিন গ্রহণ করা গুরুত্বপূর্ণ। সুতরাং চাহিদা মোতাবকে প্রোটিন গ্রহণের প্রোটিনযুক্ত খাবার গ্রহন করুন যেমনঃ মাংস, ফ্যাটবিহীন দুধ, ফলমূল ইত্যাদি।

১৫. মুখের দুর্গন্ধ একটি বড় সমস্যা। প্রতিদিন টুথপেষ্ট দিয়ে দাঁত মাজেন কুলি করেন তারপরও দেখা যায় মুখে দুর্গন্ধ সৃষ্টি হচ্ছে। নিঃশ্বাসের দুর্গন্ধ হতে মুক্তি পাওয়ার জন্য টানা দুইমাস নিয়মিত দুই কোঁয়া করে কমলালেবু খান।



১৬. শারিরীক পরিশ্রম করলে শরীরের ওজন ঠিক থাকে, উচ্চ রক্তচাপ কমে যায়। শিশু এবং কিশোর বয়সীদের দিনে এক ঘন্টা এবং বয়স্ক লোকদের আড়াই ঘন্টা দিনে ব্যায়াম কিংবা অন্য শারিরীক কাজ করা উচিত।

১৭. প্রতিবেলা খাবারের বাইরে স্বাস্থ্যকর খাবার গ্রহণ করা দরকার। আপেল, বাদাম, মাখন জাতীয় খাবার যেসব প্রোটিন, কার্বহাইড্রেট বেশি পরিমাণ থাকে সেসব খাবার গ্রহণ করুন।

১৮. পায়ের গোড়ালী ফাটার সমস্যা। বিশেষ করে শীতকালে এটি বেশি হয়, আর তা হলো পায়ের গোড়ালী ফাটে। ক্রীম বা স্ক্রাব এর ঝামেলায় আপনাকে আর যেতে হবে না। পায়ের গোড়ালী ফাটলে পেয়াজ বেটে প্রলেপ দিন। নিয়মিত এটি করলে পায়ের গোড়ালী ফাটার সমস্যা আর থাকবে না।

১৯. খাদ্যের গুণাগুণ সম্পর্কে সচেতন থাকুন। অতিরিক্ত চর্বিযুক্ত খাবার বর্জন করে কম চর্বি যুক্ত খাবার গ্রহণ করুন। বেশি ক্যালরি যুক্ত খাবার গ্রহণ করুন।

২০. খাদ্য গ্রহণে সতর্কতা অবলম্বন করুন। সঠিকভাবে খাবার রান্না, হাত পরিষ্কার রাখা ইত্যাদি বিষয়ে সচেতন থাকুন। ফুড পয়সনিং থেকে রক্ষা পেতে এইসব বিষয়ে সচেতন থাকার খুব দরকারী বিষয়।

ওপরের ২০ টি টিপস যদি একবার একবার করে হলেও ভালো ভাবে মেনে চলেন তাহলে দেখবেন আপনার সমস্যাটা আর সমস্যায় থাকবে না। সবকিছু  মিলিয়ে মিশিয়ে যাবে । ভালো লাগলে কমেন্টস করতে ভুলে যাবেন না কিন্তু। সুন্দর স্বাস্থ্য সবার প্রিয়। সুন্দর স্বাস্থ্যের জন্য  উপরোক্ত হেলথ টিপস মেনে চলুন এবং সারাদিন কার্যক্ষম থাকুন। ধন্যবাদ।

About Admin