Tuesday , November 12 2019
Breaking News
A huge collection of 3400+ free website templates JAR theme com WP themes and more at the biggest community-driven free web design site
Home / Entertainment / উল্কাবৃষ্টি দেখা যাবে ১৪ এবং ১৫ তারিখ মধ্যরাতে ।

উল্কাবৃষ্টি দেখা যাবে ১৪ এবং ১৫ তারিখ মধ্যরাতে ।

আবহাওয়া অধিদপ্তার জানিয়েছেন ১৪ এবং ১৫ তারিখ  রাত ১২ টার পরে উল্কা বৃষ্টি দেখা যাবে ।

পৃথিবীর দিকে প্রতিনিয়ত ছুটেআসছে অসংখ্য উল্কা পিন্ড । এটি বছরে একটা নিদিষ্ঠ সময়ে হয়ে

থাকে, এই উল্কার আধিক্য থাকে তুলনা মুলক বেশি ।এটি ঘন্টায় অনেক বেশি পরিমান উল্কা

পৃথিবীতে স্বভাবিক দিনের তুলনায়এই সময় আচড়ে পড়ে বলে এর নাম দেওয়া হয়েছে উল্কা বৃষ্ঠি।

এই বছরে উল্কা বৃষ্ঠি সংঘঠিত হবে ১৪ এবং ১৫ ডিসম্বার রাত ১২ টার পরে বা মধ্যরাতে ।

এই সময় আকাশ থেকে তারা খসে পরা বা তারার হাঁটার ঘটনাটা খুব স্বাভাবিক। মেঘমুক্ত রাতের

আকাশে তাকালে লক্ষ তারার চিকমিকের মধ্যে হঠাৎ দেখা যাবে চট করে কিছু তারা একদিক

থেকে আরেকদিকে চলে যাবে।কেউ বলে তারা খসে পরা কেউ বলে তারা চলাচল করা কেউ

কেউ তো আমনও বিশ্বাস করে তারার এই চলাচল দেখার পরে চোখ বন্ধ করে যদি কিন্তু চাওয়া

হয় সেই ইচ্ছাও পূরণ হয় ।

যেসব বস্তুকে আমরা আকাশের মধ্যে দ্রুত বেগে চলাচল করতে দেখি সেগুলো আদৌ তারা নয় ।

তারা যেগুলো আমরা প্রায় স্থির অবস্থায় আকাশে দেখতে পাই সেগুলো গ্রহ বা নক্ষত্র।

গ্রহ বা নক্ষত্রের নির্দিষ্ট কক্ষপথ থাকে যেগুলো থেকে তারা সাধারণত তত একটা বিচ্যুত হয় না।

আর যদি কোনোভাবে বিচ্যুত হতো সেটা তারা হাঁটার মতো ছোট বিষয় হতো না। এগুলো পৃথিবীর

মতো কিছু গ্রহের ধ্বংসেরও কারণ হতো। আকাশে ছুটে চলা তারারা ছোট ছোট গ্রহাণু, ধুলিকণা,

ছোট বড় শিলা-খণ্ড যেগুলো কোনো গ্রহ বা নক্ষত্র থেকে বিচ্যুত হয়েছে।

ছোট শিলার খণ্ডগুলো সহজ স্বাভাবিকভাবেই মহাশূন্যে ভাসতে থাকে ।

ভাসতে ভাসতে যখন সেটা পৃথিবীর বায়ুমণ্ডলে প্রবেশ করে তখন বাতাসে থাকা অক্সিজেন

এবং গ্রহাণুর গতির জন্য এতে আগুন ধরে যায়। আগুন ধরে যাওয়ার পরে গ্রহাণুটি অনেক দ্রুত

তার স্থান পরিবর্তন করতে থাকে। বেশিরভাগ সময় ভূপৃষ্ঠে আসার আগেই এটি পুড়ে যায় অনেক

সময় বায়ুমণ্ডলের বাইরে চলে যায়। একে জ্যোতিষবিদ্যায় উল্কা বলা হয়। যদিও আমরা খালি

চোখে শুধু রাতের বেলা উল্কা পাত দেখতে পাই তবে এটা আসলে দিন ভরই হতে থাকে।

শুধু সূর্যের আলোর জন্য আলাদা করে চোখে পরে না।

 

আমরা দেখি বা না দেখি পৃথিবীতে প্রতিদিন ২০ থেকে ২৫ মিলিয়ন উল্কাপাত হয় যেগুলোর

ওজন সব মিলালে প্রায় ১০০ টন। তবে এই পরিমাণ উল্কাপাত আমরা সব দেখতে পাই না

কারণ এটা পৃথিবীর নানান প্রান্তে হয়, কখনও রাতে কখনও দিনে হয়। কিছু এতই ছোট হয়

যে চোখে দেখাই যায় না। তার উপরে উল্কা এত দ্রুত চলে যায়, দেখার সময়টা পাওয়ায় দায়!

আর শহরবাসী মানুষ কতই আর আকাশ দেখার সুযোগ পায় যে উল্কাপাত দেখে ফেলবে!

রাতটি যদি বৃষ্টি মুখর না হয় আর আকাশ মেঘ শূন্য থাকে তবে অনেক রাত পর্যন্ত বসে

থাকলে একটা না একটা উল্কার ভ্রমণ চোখে পড়বেই।

 

কোনো কারণে যদি আজ রাতে উল্কার দেখা নাও পাওয়া যায় তাও হতাশ হওয়ার কিছু নেই।

চাঁদ অনুজ্জ্বল থাকে এবং আকাশ মেঘমুক্ত থাকে এমন যে কোনোদিন মাদুর নিয়ে খোলা

আকাশের নিচে বসে থাকলে উল্কা দেখাই যাবে।

 

আরো বিভিন্ন বিষয়ে জানতে চাইলে আমাদের পেজে লাইক দিয়ে সংযুক্ত  

About Admin